ঢাকা, রবিবার, ২৪শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সেই পাঠাও চালককে বাইক উপহার দিলেন গোলাম রাব্বানী

[ছবি: সংগৃহীত]

রাজধানীর বাড্ডায় ট্রাফিক পুলিশের হয়রানীর শিকার হয়ে নিজের মোটরবাইকে আগুন ধরিয়ে দেওয়া পাঠাও চালক শওকত আলম সোহেলকে একটি নতুন বাইক উপহার দিয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সাবেক জিএস গোলাম রাব্বানী।

 

 

গোলাম রাব্বানীর ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে বিষয়টি শেয়ার করা হয়েছে। এদিকে পাঠাও চালাকের সাথে কথা বলেছেন। পাঠাও চালক শওকত আলম বাইক পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

গোলাম রাব্বানী তার ফেসবুক পোস্টে বলেন, টিম পজেটিভ বাংলাদেশ (টিপিবি) এর পক্ষ থেকে শওকত আলম সোহেল ভাইকে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা’র উপহার’ হিসেবে একটি ব্রান্ড নিউ ডিসকভার-১২৫ সিসি’র মোটরসাইকেল প্রদান করা হয়েছে।

 

এই মহতী উদ্যোগে মানবিক সহায়তার হাত বাড়িয়েছেন, টিম পজেটিভ বাংলাদেশের সদস্য জাকির হোসাইন, আহমেদ বিন সজিব, মেহেদি হাসান রিমন, মেহেদি ইসলাম, শাকিল নিঝুম রাসেল আহমেদ আদনান রাহান, নাদিম মাহমুদ, শরিফ ওবায়দুল্লাহ এবং এস কে টেডার্সের সত্ত্বাধিকারী মামুন বাজাজ।

 

উল্লেখ্য, গত ২৭ সেপ্টেম্বর বাড্ডা লিংক রোড এলাকায় জনতা ইনস্যুরেন্সের সামনে নিজের বাইকে আগুন ধরিয়ে দেন শওকত। ঘটনার পর পুড়ে যাওয়া মোটরসাইকেল ও শওকত আলীকে বাড্ডা থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

 

জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শওকত আলী জানান, মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়ার পেছনে পুলিশের কোনো দোষ নেই। রাগ করে নিজের গাড়িতে আগুন দিয়েছি। গত সপ্তাহেও আমাকে একটা মামলা দেওয়া হয়েছিল। আজ ট্রাফিক পুলিশ আবারও মামলা দিতে চাইলে ক্ষোভ থেকে এ কাজ করেছেন। আমি এ ঘটনায় অনুতপ্ত।

 

বাড্ডা থানার সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক) সুবীন রঞ্জন দাস জানান, লোকটি খুবই হতাশাগ্রস্ত অবস্থায় রয়েছে বলে মনে হলো। তার এলাকায় ব্যবসা ছিল। করোনায় লোকসান করে এখন বাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন। এসব কারণে হতাশা থেকে হয়তো এ কাজ করেছেন।